মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে নেত্রকোণা

সাধারণতথ্যঃ

ক্রমিক

তথ্যের বিবরণ

পরিমাণ

আয়তন

২,৮১০ বর্গ কিঃ মিঃ

জনসংখ্যা

২২,২৯,৪৬৪ জন, পুরুষ-১১,১১,৩০৬জন, মহিলা-১১,১৮,৩৩৬জন (২০১১ সালের আদম শুমারী অনুযায়ী)

উপজেলা

১০ টি

পৌরসভা

০৫ টি (১.নেত্রকোণা, ২.মোহনগঞ্জ,  ৩.দূর্গাপুর, ৪. কেন্দুয়া, ও ৫.মদন)।

ইউনিয়ন

৮৬ টি

সীমান্তফাঁড়ি

০৮ টি

গ্রাম

২,২৯৯ টি

যোগাযোগব্যবস্থা

 
 

ক.  রেল পথ

৬৫ কি. মি.

 

খ.  সড়ক পথ

পাকা সড়কঃ ৫৬৬ কিঃ মিঃ,কাঁচা সড়কঃ ১৬৬০ কিঃ মিঃ

 

গ.  নদী পথ

২০০ নটিক্যাল মাইল (প্রায়)

   

১০ টি উপজেলার মধ্যে ৯ টির জেলা সদরের সাথে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ বিদ্যমান আছে। কিন্তু  খালিয়াজুরী উপজেলার সাথে জেলা সদরের সরাসরি সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা নেই।

জেলার সাথে ঢাকার যোগাযোগ

 
 

সড়কপথ

নেত্রকোণো থেকে ঢাকার দূরত্ব প্রায় ১৬২ কিঃ মিঃ (নেত্রকোণা-ময়মনসিংহ-ঢাকা)। খালিয়াজুরি উপজেলা সদর ব্যতীত অন্যান্য সকল উপজেলা সদর থেকে ঢাকার সাথে সরাসরি বাস সার্ভিস চালু আছে।

 

রেলপথ

প্রায় ১৮৩ কিঃ মিঃ। ৩০আগষ্ট ২০১৩ হতে 'হাওড় এক্সপ্রেস' নামে ঢাকা-মোহনগঞ্জ ভায়া নেত্রকোণা রুটে আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিস চালু হয়েছে। তবে পূর্ব হতেই মোহনগঞ্জ--নেত্রকোণা-ময়মনসিংহ-ঢাকা রুটে মেইল ট্রেন সার্ভিস চালু আছে। এছাড়া প্রতিদিন ময়মনসিংহ-মোহনগঞ্জ ভায়া নেত্রকোণা রুটে ২টি লোকাল ট্রেন সার্ভিস চালু আছে।

১০

জেলার সাথে উপজেলার (Head Quarter) যোগাযোগ

 
 

নেত্রকোণা সদর

১০০মিটার, ৫ মিনিট

 

বারহাট্টা

১৬কিঃ মিঃ, সড়ক পথে যাতায়াতের সময়-৪০ মিনিট।

 

আটপাড়া

১৯কিঃ মিঃ, সড়ক পথে যাতায়াতের সময়-৪৫ মিনিট।

 

কেন্দুয়া

২৭কিঃ মিঃ, সড়ক পথে যাতায়াতের সময়-৪০মিনিট।

 

মদন

৩০কিঃ মিঃ, সড়ক পথে যাতায়াতের সময়-১ ঘন্টা।

 

মোহনগঞ্জ

৩০কিঃ মিঃ, সড়ক পথে যাতায়াতের সময়-১ ঘন্টা।

 

পূর্বধলা

২০কিঃ মিঃ, সড়ক পথে যাতায়াতের সময়-১ ঘন্টা।

 

দুর্গাপুর

৪৫কিঃ মিঃ, সড়ক পথে যাতায়াতের সময়-২ ঘন্টা।

 

কলমাকান্দা

৩৩কিঃ মিঃ, সড়ক পথে যাতায়াতের সময়-২ ঘন্টা।

 

খালিয়াজুরী

৫৫.০০কিঃ মিঃ, বর্ষাকালে ইঞ্জিন চালিত নৌকাযোগে ৩.০০ ঘন্টা, শুষ্কমৌসুমে মোটর গাড়ী যোগে ৩.৩০ঘন্টা এবং মোটর গাড়ী, ইঞ্জিন চালিত নৌকা ও পদব্রজে ৪.৩০ ঘন্টা।

১১

হেলিপ্যাড

খালিয়াজুরী উপজেলা ব্যতিত সকল উপজেলায় হেলিপ্যাড রয়েছে।

১২

টেলিযোগাযোগব্যবস্থা

জেলার সকল উপজেলার সাথে ডিজিটাল টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা চালু আছে।

১৩

মোবাইলনেটওয়ার্ক

জেলার সকল উপজেলা মোবাইল নেটওয়ার্কের আওতাভুক্ত।

১৪

ফ্যাক্স

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় গুলোতে ফ্যাক্স রয়েছে।

১৫

কৃষি

৪,৭৩,০০০.০০ একর

 

আবাদযোগ্য জমির পরিমাণ

৫১,৩৩১.০০ একর

 

অনাবাদী জমির পরিমাণ

৬৬,০৬৫.৬৯ একর

 

খাস জমির পরিমাণ

কৃষি-৩৫৯৮৩.৮৭ একর, অকৃষি- ১৭১৫৭.১৩ একর। বন্দোবস্তযোগ্য খাস জমির পরিমাণ- ২৩০২৭.২৮(কৃষি), ৩০৪.৮২(অকৃষি)।

১৬

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

 
 

বিশ্ববিদ্যালয় (শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়)

০১টি

 

মেডিকেল কলেজ (নেত্রকোণা মেডিক্যাল কলেজে)

০১টি

 

মহাবিদ্যালয়

২৭টি (সরকারী ৩টি এবং বেসরকারী ২৪টি)

 

শিক্ষক প্রশিক্ষণ মহাবিদ্যালয়

০১টি

 

উচচ বিদ্যালয়

১৮৭টি (সরকারী ৬টি এবং বেসরকারী ১৮১টি)

 

জুনিয়র স্কুল

৫৯টি

 

সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়

৬৩০টি

 

বে-সরকারী রেজিঃ প্রাঃ বিদ্যালয়

৪৬৩টি

 

বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়

১৪৪টি

 

ইংরেজী মাধ্যম প্রাঃ বিদ্যালয়

০১টি

 

কারিগরী প্রতিষ্ঠান

০২টি (সরকারী ১টি এবং বেসরকারী ১টি)

 

প্রাথমিক শিক্ষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র

১টি

 

মাদ্রাসা

৩১০টি(কামিল-০১টি,ফাযিল-৯টি,আলিম-১৪টি, দাখিল-৫৯টি এবংএবতেদায়ী-২২৭টি)

 

সরকারীশিশু পরিবার (বালক)

০১টি

 

এতিমখানা

০৫টি

 

উপজাতীয় কালচালার একাডেমী

০১টি

 

পাবলিক লাইব্রেরী-কাম-অডিটরিয়াম

০৬টি

১৭

চিকিৎসাঃ

 
 

আধুনিক সদর হাসপাতাল

০১টি

 

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে­ক্স

০৯টি

 

ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র

৬২টি

 

মাতৃসদনও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র

০১টি

 

কমিউনিটি ক্লিনিক

২৪৪ টি

১৮

অন্যান্য

 
 

প্রেস

২২টি

 

বি,জি,বি ব্যাটালিয়ন হেড কোয়ার্টার

০১টি

 

টেলিফোন অফিস

১০টি

 

সাধারণ পাঠাগার

০২টি

 

এল,এস,ডি গোডাউন

১৫টি

 

এফ,এস, গোডাউন

৩০টি

 

স্টেডিয়াম

০১টি

 

জেলা হিসেবে শুভ উদ্বোধন

১ ফেব্রুয়ারী ১৯৮৪ খ্রিঃ।

১৯

দর্শনীয় স্থান

বিজয়পুর পাহাড়ে চিনামাটির নৈসর্গিক দৃশ্য, দূর্গাপুর।

   

টংক আন্দোলনের স্মৃতিসৌধ, দূর্গাপুর।

   

রাণীখং মিশন টিলাতে ক্যাথলিক গির্জা, দূর্গাপুর।

   

বিরিশিরি কালচারাল একাডেমী, দূর্গাপুর।

   

কমলা রাণীর দীঘি, দূর্গাপুর।

   

কথিত নইদ্যা ঠাকুরের ভিটা, দূর্গাপুর।

   

রাশমণি স্মৃতি সৌধ, দূর্গাপুর।

   

লেগুরা, চেংটি, গোবিন্দপুরের পাহাড়ের নৈসর্গিক দৃশ্য, কলমকাকান্দা।

   

সাত শহীদের মাজার, কলমকাকান্দা।

   

হযরত শাহ সুলতান কমরউদ্দিন রুমী (রাঃ)-এঁর মাজার শরীফ, নেত্রকোণা সদর।

   

রোয়াইলবাড়ীর পুরার্কীতি, কেন্দুয়া।

২০

সমস্যা

নেত্রকোণা শহরের যানজট নিরসন কল্পে মোহনগঞ্জ-ঢাকা সড়কে কোন বাইপাস সড়ক নেই।

   

নেত্রকোণা পৌরসভাস্থ মগড়া নদীর উপর নির্মিত মোক্তারপাড়া ব্রীজটি অত্যন্ত ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় আছে।

   

নেত্রকোণার বিস্তৃত হাওরাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল নয়।

   

নেত্রকোণা-কেন্দুয়া, নেত্রকোণা- পূর্বধলা, এবং নেত্রকোণা- কলমাকান্দা রাস্তার বেহাল অবস্থা।

     
     

২১

সম্ভাবনা

সিরামিকও কাঁচশিল্পের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত সাদামাটি ও কাঁচবালি হিসেবে দূর্গাপুরে পাওয়া যায়, যা দিয়ে দূর্গাপুরে সিরামিক কাঁচশিল্প স্থাপনের বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে।

   

পর্যটন শিল্পের বিকাশে দুর্গাপুরের বিজয়পুর, বিরিশিরি, কলমাকান্দার লেঙ্গুরা এবং কেন্দুয়ার রোয়াইলবাড়ীতে অবস্থিত মোগল স্থাপত্যকে কেন্দ্র করে পর্যটন কেন্দ্র গড়েতোলা যেতে পারে।

   

বিজয়পুর স্থলবন্দরের কার্যক্রম চালুর মাধ্যমে রাজস্ব আদায় বৃদ্ধিসহ জেলায় কর্মসংস্থান ও ব্যবসা বাণিজ্য প্রসারের উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে।

   

হাওরবাওর বেষ্টিত ভাটি অঞ্চল হওয়ায় মিঠা পানির মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধিসহ মাছের অভয়াশ্রম সৃষ্টির ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter